অজুহাত


অজুহাতে চোখ ছোট করতেই পারি,
হিসেব গুলিয়ে বলতে পারি " বাবু, আজও ফের গোল
হয়ে গেলো খসড়াতে"
কি অদ্ভূত, আমি তোমায় বাবু ডাকি,
তুমি কেন চোখ কুঁচকে আমায় দেখো,
বড্ড মনিব সাজলে নাকি!

বাবু ডেকেছি,
ভাতের থালার পাশে নকশিপাখা হয়ে দিব্যি আছি,
সে কি কেবলই গরম ভাতের অজুহাতে,
হুহ,
না বাবু না,
তুমি ছাই বোঝোগো,
না বাবু না,
তুমি আমায় ছাই চেনোগো।

বাবু তোমার খাতার পাতায় আমায় নিয়ে একটা কবিতা লিখো,
দেখ ; আমি কাঁজলের সীমা এঁকে তোমায় পূজো দিচ্ছি
,
তোমার বেদীতে ফুল রাখবো কি ছাই,
নিজেই আঁকড়ে বসে আছি।

বাবু তুমি গরমভাতের অভিমান দেখাও, আমার অভিমান বোঝনা,
বাবু তুমি শার্টের আস্তিনে জমা ময়লা চেনো,
আমার ঠোঁটের কোণের সুপ্ত অভিমান চেনোনা।
বাবু ,
তোমার নরম রোদ্দুরের ইজিচেয়ারের উষ্ণতা বোঝ,
বাবু কেবল তুমি আমায় বোঝনা।

0 comments:

Post a Comment