দু চোখের কপট রোদ্দুরে


তোমার চোখ থেকে চোখে ছুঁড়ে দেওয়া তীব্র
ভালোবাসা,
দুম করে আমায় থমকে দেয় অসময়ে এসে পড়া
মেইলট্রেনটার মত,
আমার অদ্ভূত লাগতে শুরু করে।

ভেবেছিলাম,
রিকশার হুড ফেলে ছুটে চলা এক ভরদুপুরে বলবো,
"মৃণালিনী,
এক আকাশ নীল, কৃষ্ণচূড়ার প্রেম দেবো,
তোমার দুহাতে শেঁকল বাঁধবো আলতারঙা কাঁচের
চুড়ির নামে,
ভরদুপুরটা একদম চুপ হয়ে যদিবা যায়
তোমার বারান্দায় রেখে দেবো লিলুয়া হাওয়ার
কানাকানি,
তুমি উদাস জানালায় না তাকিয়ে বরং আকাশ
দেখো হাতটি হাতের মুঠোয় বন্দী করে। "

তোমার চোখ থেকে চোখে ছুঁড়ে দেওয়া বাসন্তি
চিরকুট আমায় থমকে দেয়,
আমি ল্যাম্পপোষ্টের হলুদ আলো ঝাপসা দেখি,
তীব্র শোরগোল ওঠে বুকের কপাট খোলা
জানালায়,
চিরকুটে যেন জ্বলজ্বলে হরফে লেখা,
"সবটুকু নাই বললে,
সে তোমায় যে জেনে গিয়েছে,
তোমার এলোচুলের নিচে,
জমাট বাঁধা সুপ্ত কথার বাক্স দু চোখ হতে।"

সব চুপ,
কথারা খুঁজে ফিরছে নীলআকাশ,
মেঘকাজল ঘেরা দুচোখের কপট রোদ্দুরে।

0 comments:

Post a Comment