ভুবন চিলের কাব্য

সুচীস্মিতা,
আকাশ এখনো নীল,
উঁচু থেকে আরো উঁচু,
কুমারী আকাশ ছুঁতে চায়-
একলা ভুবন চিল!

হাজারো অট্টালিকার ভীড়ে,
একাকী দোয়েল-
নেচে নেচে,
খোঁজে সংগী তাহার!

বহুতল ভবনের এক কোণে,
নিভৃতে, মাথা গুঁজে আত্মমগ্ন-
একাকী পূরুষ!

কোনো এককালে,
অনাঘ্রাতা অঘ্রানে,
কোনো কেউ, 
দিয়েছিলো কথা।

কৈশোর কেটে গেছে,
তারুন্য প্রতীক্ষায়,
যৌবন হাহাকারে,
ফেরেনিতো সে...

মেঘে মেঘে কেটে গেলো বেলা,
একাকী পুরুষ, এক কোণে,
নিমগ্ন, জীবনের খেরো খাতায়।

প্রাপ্য আর প্রাপ্তির হিসাবের গরমিল-
মেলায় গোঁজামিলে।
তবুও হায় মেলেনা তো হিসাব-
মেলেনি যে কখনো, জীবনে জীবন!

কালপুরুষ জেগে থাকে,
সপ্তর্ষি স্বাক্ষী মহাকালের,
নক্ষত্রেরা পোড়ে,
প্রতীক্ষায় দগ্ধ জীবন!

সূচীস্মিতা,
আকাশ এখনো নীল-
সংগী,
আজো খোঁজে ভুবনচিল!

0 comments:

Post a Comment