কিশোরী পাখির পালক

   
           ১।
তবু আমার ইচ্ছে হয়,
তোমার সাথে এক বিকেলে হঠাৎ করে দেখা হবে।
তখন বোধহয় গরমকাল, আর
তুমি বৃষ্টি ভেবে ভুল করবে।




                ২।
একফালি কবিতায় অস্তিত্ব ভেসে যাক,
প্রকাশ্য গোপন হোক,
গোপন তুই নিষিদ্ধ থাক।




                 ৩।
বৃষ্টি হলেই ভিজব এবার
ভিজব না আর কথায়;
বৃক্ষ হতে গিয়ে দেখি
জড়িয়ে আছি  লতায়।

                   ৪।
এই খানে এসে প্রেম শেষ হল,
রাখালি মেঠোপথ ধরে কষ্টেরা হেঁটে গেল,
তুমিও চলে গেলে দৃষ্টির আড়ালে।
আবেশের খেয়াঘাটে বসে মধ্যবয়স্ক মাঝি,
ভাটিয়ালী সুরের পাল ওড়ানো...
চুপি চুপি বললাম, " তোমার যেখানে সাধ চলে যাও।"
আমি এই বাংলার পারে রয়ে যাব।




                   ৫।
তারা সকলেই কষ্টে আছে,
তারা সকলেই অনটনে আছে,
তারা সকলেই রাতভর
হাত তুলেছে।

                    ৬।
পাতার প্রস্থান দৃশ্যগুলো
 চোখের আড়ালে চলে গেলে
শেষ হয় কালের কম্পন।
বিনিদ্র রাতের মোহনায় সবুজ নোঙর ফেলে
জাগে বসন্ত।
বন এবং মন জুড়ে আলোর বসন্ত
পড়ে থাকে কিশোরী পাখির পালক।

                     ৭।
নষ্ট জীবন
নষ্ট ভাবা
কষ্ট পাওয়া শুধু,
স্পষ্ট করে যায়না বলা
কোথায় সুখের বিধু;
কোথায় আছে সুখের আকাশ
কোথায় সুখের হাওয়া,
হঠাৎ মাঝে দেখা গেলেও
যায়না তাকে ছোঁওয়া।।




                   ৮।
খালি খাম দেখে মনে হয় ত্রিমাত্রিক বাক্স।
এই নাও,
খালি খামে ভরে দিয়েছি সম্ভাবনা,
যা ছিল এবং যা ছিল না সবকিছু।
কাগজে মুড়ে তোমায় দিলাম
স্পেসটাইম।।


     style="display:block"
     data-ad-client="ca-pub-2221917604703020"
     data-ad-slot="3843650204"
     data-ad-format="auto">



0 comments:

Post a Comment