বৃষ্টিতে ভিজব বলে ভিজে গেল দুই চোখ


হৃদয় অরণ্য শ্রাবণ ধারায় ভেসে যায় প্রতি রাতে,
টুপটাপ শব্দের মোহে রচিত যে পংতিমালা
জন্মের আগেই মৃত্যুমুখে পতিত হয় বলে;
কদম বিলাসী হয়ে ওঠেনা ভাবুক, খেয়ালি মন।




ডায়েরীর পাতাগুলো হাহাকার করে
প্রতিনিয়ত শূণ্যতাকে উপজীব্য করে,
বেচেঁ থাকে, বাচঁবে বলেই………………
শুভ্র কিংবা সাদাই থেকে যায় সারাক্ষণ,
ভয়ংকর একাকীত্ব গ্রাস করে চারপাশ;
কালির আচঁরে আকাঁ হয়না কারো স্কেচ।




বর্ষণ হয় চারিপাশে, হৃদে….. নয়নে
সবুজ আভা ফুটে ওয়ে অবনী জুড়ে
প্রেয়সীর হাসিতে নতুন মহাকাব্য রচিত হয়;
এই শ্রাবনে,
কারো কারো ভগ্ন হৃদয় কাটিয়ে উঠতে চায় শোক,
অথবা
অশ্রুবিলাসী কেউ চোখ মোছে,
পেছনে রেখে যায় শূণ্য ডায়েরীটাকে
ঘুট ঘুটে অন্ধকারে রাত্রিবাস, হয়ে শ্রাবণ সঙ্গী
ভিজব শ্রাবন ধারায়…..ভিজব আমি,
কেন জানি;
বৃষ্টিতে ভিজব বলে ভিজে গেল দুই চোখ।




0 comments:

Post a Comment