এক অন্য কাহিনী যার শিরোনাম জীবন

A year ago I would've never  pictured my life the way it is now :-(  You were my hometown when  My heart was filled with loneliness.




সে ছিল এক গল্প, যার শুরুটা হয়তো ঠিক শেষের মত ছিল না, কিংবা সবাই যেমন চায় তেমনটা ঠিক ছিলনা।  সব গল্পের শুরু কিংবা শেষ যে মনের মতই হবে তার তো কোনো মানে নেই।
সে ছিল এক উদাসী বাতাসের গল্প। আমাদের নিরালা উঠোনে ঝাঁকড়া চুলের একটাই গাছ পাগলের মত নির্বাক হিংসা করবে শুধু এমনটাই কথা ছিল; কথা ছিল নতুন গুড়ের ঘ্রাণ ঠোঁটে ছুঁয়ে মিশে যাবো কানের লতিতে।  সূর্যাস্তের আগে দীর্ঘ্য গোধুলী জুড়ে আমাদেরই ছায়া ক্রমশঃ আবছা হবে আমাদেরই নিভৃত সড়কে।

তারপর এলো এক শীতের বিকেল, এমন ছন্নছাড়া বিকেল কখনই আসেনি আর। আমার চিলেকোঠার উত্তরের জানালায় একদিন আলতো ছুঁয়ে গেল এক দখিনা বাতাস। আমি বুঝতে পারি সেই দখিনা বাতাসের ইচ্ছে ছিল অন্য কিছুর। এমন উদাসী বাতাস কখনই আসেনি আর। আমার শহরের নিয়ন আলো একে একে জানান দেয় এবার সময় এসেছে ফিরে যাওয়ার।
তারপর একদিন জানতে পারা যায় আমাদের না বলা গল্পেরা খুঁজে নিয়েছে নুতন মোড়। পেছনে পড়ে রইলো আমাদের পুরোনো ঘরের সেই হাসি কান্নারা...একা এবং একা।

এক সমুদ্র জংলা ঘাসের মাঝে হাঁটতে হাঁটতে অন্ধকারে হারিয়ে আমাদের সম্পর্কটাকে আর ঝলসে নেওয়া হলনা।
সে ছিল এক রাঙা ভাঙা চাঁদ, যাকে ছুঁয়ে আমি বুঝতে চেয়েছিলাম কলঙ্কের পরিভাষাটা কি? কবিতারা চাঁদকে কতটা ছুঁতে পারবে, কিন্তু এই কাহিনীর তাগিদ এক অন্য কাহিনী যার শিরোনাম জীবন।




ইচ্ছে ছিল একটা রাতের কবিতা লিখব, যখন আদ্দিকালের পুরনো ঘড়িতে ঢং ঢং করে বারোটা বাজবে,
আর পিচের রাস্তায় ঠিকরে পড়বে ইলেকট্রিক আলো, দু’একটা ছন্নছাড়া কুকুর আর রাতের ছেলেরা হইহই করতে করতে চলে যাবে, একটা বাচ্চা ফুটপাথ আঁকড়ে ঘুমিয়ে পড়বে, আর সমস্ত রাত আমি তন্ন তন্ন করে খুঁজতে থাকব একটা কবিতা। উড়ালিয়া বাতাসে লিখে দিব আমি ছিলেম,
ছিলেম বটবৃক্ষে,তোমাদের সাথে
এই জলশাখে…উড়ে গেছি রৌদ্র কণা হয়ে প্রচন্ড দাহে, পুড়ে গেছি তোমার শত সহস্র অবহেলায়।
দেউলিয়া বাতাসে লিখে দেব প্রেম আমার কলকল বয়ে যায় আমার প্রথম দেখা তিতাস'এ…যে কথা শুনাতে গিয়ে কন্ঠ ডুবেছে অন্ধকারে, তারেই  দিয়ে যাব গীতিমাল্য পাখিদের উপহার।




সে কবে কেউ লিখেছিল লাল কা;লিতে। সে পাতার বয়স হয়েছে, তবুও যত্নে রাখা বইয়ের ফাঁকে। আজও। সে নেই, চিঠিটা আছে। এখনও। ইনল্যান্ড লেটারের আকাশি রঙে কেউ নীল কালিতে লিখেছিল কবে, " আমার বাড়িতে এলে তোকে আমি অমলতাস ফুল দেখাবো। সন্ধ্যেবেলা বড় ছাদটা সুপুরী গাছের ছায়ায় ভারী সুন্দর লাগে, দেখতে পাবি মাধবীলতা গাছে, শিউলি গাছে জ্যোৎস্না আটকে থকে, দেখবি..."
সে বাড়িতে আর যাওয়া হয়না। তবু চিঠিটা থেকে গেছে।।  

0 comments:

Post a Comment