প্রাত্যহিক বেদনাগুলো



০১

মাদের প্রাত্যহিক বেদনাগুলো আমরা খুব যত্ন করে সাজিয়ে রাখি ড্রেসিং-টেবিলের উপর - ছোট বড় সুগন্ধি বোতলের সাথে ... যেনো আমাদের কষ্ট গুলো কোনোদিনও দু:খ-মাখা-গন্ধ না  ছড়ায়  ... আমাদের অলিখিত সুখ গুলো আমরা ঝুলিয়ে রাখি ক্লোজেটের ভিতর নামকরা ব্রান্ডের জুতা-কাপড়ের ভাজে ... সবাই দেখে আর কেমন হিংসায় জ্বলে ... আমাদের টুকরো-টুকরো হাসি গুলো আমরা সিন্দুকের ভিতর পুরে রাখি সোনা-রুপা-হিরা-জহরতের নিচে ... আমাদের ভালবাসা মিশে আছে অনেক বড় অংকের সেভিং একাউন্টের ফিক্সডিপোজিটের মাঝে ... একটুও কমবে না কোনোদিন ... আমরা মহা সুখি ; আর কি চাই ?   সং এর মতো আমাদেরও তো আছে সারাক্ষন  হাসি আঁকা মুখ ... ।

০২

ই যে ইচ্ছে-কুসুম ফুটে আছে কেমন শুন্যতায়... আর নিভু-নিভু গন্ধ বিলাচ্ছে তারা সারারাত ভর ...এই যে দু:খভারাক্রান্ত হাওয়ায় ভরে আছে সমস্ত  আকাশ .... আর এই যে তারাপুষ্প ঝরে পড়ে হঠাৎ-হঠাৎ...তবুও তো মানুষ ঝরা ফুল কুড়ায়- মালা গাঁথে...তবুও তো ঝরা ফুলেরা গন্ধবিলায় ...

এই যে থোকা-থোকা রোদ ফুটে আছে গাছেদের ডালে ; শাখা-বিশাখায় ...আর ঝরা পাতাদের সাথে তারও কিছু ঝরে পড়ছে মাটিতে কেবল ... এই যে সারি সারি রোদের ঢেউ কেমন শুয়ে আছে জলের উপর... আহারে সোমত্ত-রোদের দিন তবুও তো শেষ হয়ে যায় ... তবুও তো সোমত্ত রোদের দিন ডুবে যাবে শীতের খোয়ায় ...

আবারও  ফুটবে ফুল জানি- শীত ও চলে যাবে ...কচি ধানের-শিষ বেয়ে সমস্ত রোদ দাড়াবে আবার ... আবারও নামবে ছায়া দেখো পুকুরের পাড়ঘেঁষে জলে.. আবারও সারা গায়ে রোদ মেখে উড়ে যাবে ধুলো - আহারে ...

ধ্যানি মাছের মতো আমি তবু ডুবে থাকবো জলের অতল - একদম চুপ ... লোভের টোপে আর মারবোনা একটাও ঠোকর ...আলোর অভিধান পাশে ফেলে রেখে যারা করতে চায় ছায়া-সমগ্র পাঠ- তারা করুক...আহারে ,আমি তো জানি শীতের হিমেই উন্মুক্ত হয়ে যায় হাওয়ার স্বরুপ ...



0 comments:

Post a Comment