এক নদীর গল্প

শিক ধরে দাঁড়িয়ে আছে হাওয়া হাওয়া ধরে চড়ুইপাখি কেউ জানতেই পারল না , বুকের ডানদিকে কারফিউ রেখে গেল কফি রঙের ফিঙে মেঘ। থেকে যাও বিজন, থেকে যাও। নেশা ধরে ধরে তোমার বায়বী সুড়ঙ্গে                 -এগিয়ে আসছি আমি। আর কেউ কি কাঁদছে নক্ষত্রের দিকে যাবে বলে?

 আমার দৃশ্যের ভেতরে এঁকেবেঁকে যায় সুবর্ণরেখা নদী। ওই পাড়ে যাব বলে রোজ নদীটির ওপর একটি সাঁকোর ছবি আঁকি। তারপর, আমাকে ফেলে সারি সারি মানুষ পেরিয়ে যায় ওই সাঁকো; শুধু আমি-ই পেরোতে পারিনি কোনোদিন। ওই পাড়ে যাওয়ার প্রবল বাসনা আমার। অথচ, সাঁকো পেরোতে পারি না। এমনকি আমার কোনো ডানা নেই যে, উড়ে উড়ে যাব।

ভাবছি, এবার শীতে সাঁকো আঁকার বদলে চা-পাখির ডানা এঁকে নেব দেহে। সেই ডানা নিয়ে পাখিদের সাথে উড়াল দেব নদীর ওই পাড়ে, তীরের কাছে। দেখে নেব, জলকলমির ঝোপের আড়ালে সুবর্ণরেখার জলে আমার চেয়ে কত বেশি দহন লেগে আছে...



0 comments:

Post a Comment