আমাদের হারিয়ে যাওয়া



মরা যারা রোদ-ক্লান্ত পাতার আকণ্ঠ প্রশ্রয়ে লুণ্ঠিত অপ্সরার মতো আকাশ সোহাগ জমিয়েছি, যারা সর্বব্যাপী উন্মত্ততা ছড়িয়ে যৌবন গুছিয়ে রেখেছি চিলেকোঠার চাঁদ বাক্সে, যারা অনাথ বিহঙ্গিনীর প্রশ্রয়ে গোধূলির শেষ নাবিকের ভিক্ষাঝুলি কণ্ঠে নিয়ে পারি দিয়েছি সাত সমুদ্রের আর্তনাদ। আমরা যারা নিজেদের চুরি যাওয়া অস্তিত্বের খোঁজে অর্ধ-ভুক্ত সন্ন্যাসীদের মতো বিস্মৃত ধানক্ষেতে আকণ্ঠ রৌদ্র-পানে মগ্ন হয়েছি, আমরা যারা নষ্ট শঙ্খের কানে সমুদ্রমায়ের আর্তনাদ শুনেছি আর নতুন বইয়ের পাতায় পাতায় শুঁকেছি নবজাতকের ঘ্রাণ। ক্ষণিকের আলুথালু প্রেম, অচেনা যাপনের বুকে সমর্পণ করে সীমন্তিনী কালরাত্রির মতো অচিন রাগিণীর তপস্যা করেছি, আর পথভ্রষ্ট কুহকিনী ছলনায় মোহাবিষ্ট শীত রাত্রির মতো হয়েছি অন্ধত্ব ভিকারি। আমরা যারা পথের ধুলোয় কবিতা লিখেছি, গান বেঁধেছি অস্তিত্বের, শহুরে বিপন্নতায় অভিনয়-ক্লান্ত রক্তাক্ত সত্তা নিয়ে খুঁজে নিয়েছি এক-বুক অন্ধকার, আমরা যারা থমকে গিয়েছি কোনও এক পথের বাঁকে, অঙ্ক খাতা ভরিয়েছি ছবিতে, নেশায় প্রেমে তাদের কি অমলকান্তি ভালবাসেনি?



আমরা যারা শরীরের মায়া তুচ্ছ করে কেবল প্রেম চেয়েছি, নিশ্চয়তার মায়াজাল ভেঙ্গে হতে চেয়েছি অনিশ্চয়তার রাজা, ক্লাস রুম ভেঙে চলে গেছি দিঘি পারে, শুনেছি কান পেতে যাপিত জীবনের ভেসে আসা রেখা, ধানক্ষেত আল বেয়ে ছুটে গেছি অসীমে। আমরা যারা কতগুলি গলি কিনেছি পৃথিবী বেচা ভদ্রলোকের কাছ থেকে, কতগুলি আলো কিনেছি অন্ধকারের জন্ম তিথিতে, কতগুলি মেঘে সুতো লাগিয়ে উড়িয়েছি দিনরাত আর উদ্ধত জোনাকির হাত ধরে যারা খুঁজেছি হারিয়ে যাওয়া বন্ধু তাদের কি অমলকান্তি বন্ধু বলেনি?



আমরা যারা হদ্দ বোকা, অপরিণত, ইমোশনাল, পাগল,যাদের জীবনটা ষোল আনাই ফাঁকি, জীবনের সব অঙ্কই যাদের প্রতারিত করেছে, জীবনের উপত্যকায় অভিনয়ে ক্লান্ত আমরা…যারা মুক্ত, সৎ,স্বাধীন, শিল্পী…আসুন আকাশ হত্যাকারী ফ্ল্যাটবাড়ির আগ্রাসন, জীবনের সমস্ত অনর্থক ইঁদুর দৌড় অতিক্রম করে বন্ধু পাতাই আমরা …ব্যারিকেড ভেঙে নয়,প্রেমের পদ্যে আমাদের মাঝে অমলকান্তি বেঁচে উঠুক।



0 comments:

Post a Comment