ছন্নছাড়া



তুমি কি আর মনে রাখবে আমার অক্ষর! ছন্দের গায়ে রোদ লেগে যে বিকেল নেমে আসে আমার বুকের ভিতর! তুমি তো চেয়েছিলে ছায়াঘর। বিদেশি পারফিউমে ম-ম করবে সমস্ত পোশাক।

বাতাসে স্পর্ধার কেশর উড়িয়ে সবাই কি প্রথম হতে পারে রেসকোর্শের মাঠে? আমি সেই নক্ষত্রদেহ, যার করুন আলো আর ছাই সমান সমান।

পথ পড়ে আছে। যাও। রাস্তার ধুলোয় নিষেধ মেশাইনি কোনোদিন। বরং তাকিয়ে দেখো, দূরে যাওয়ার সমস্ত পথের ভিতর আমি চেয়েছি স্বপ্ন পরাগ নিষিক্ত হোক। আসার মত যাওয়ায় যেন সুগন্ধ ছড়ায়। মায়া জ্যোৎস্নার দাগ রাখে গোপন পাঁজরে।

অপেরার কিরকম দৃশ্য তোমার দু'চোখে অন্ধকারে নদী এঁকে দেয়। কিভাবে সমুদ্র স্নানের পর লবনাক্ত দেহ শুকোবে বলে মনস্থির করে ফেলেছো আগামী বসন্তে-চাইলে জানতে পারো।

পৃথিবীর সমস্ত খোলামাঠ আমার ঘর। আমি থাকব কোথাও না কোথাও।







0 comments:

Post a Comment